Header Ads

Concerns over the report of India, the US Congress, hoping for Russia's support মার্কিন কংগ্রেসের রিপোর্টে উদ্বেগ

India is trying to get Russia's support in this matter of extreme tension with China over the Doklem issue. New Delhi is trying to gain that support before the upcoming BRICKS summit of five developing economic powers - Brazil, Russia, India, China and South Africa -

A source told Indian officials that communication between the two countries continues. It is believed that the trump administration's clear position in the Dokmal issue is not going public; it is considered to be a push for India. In these circumstances India hopes to support Russia.

India has been in touch with Moscow for the past six months to give China a spirit of anti-India sentiment. In this year, the Indian supplier of Russia to Russia to prevent China from opposing India on the issue of an international group or NSG membership issue.

An official, who did not want to reveal the name, said that Russia is an important strategic partner, so it is normal for a friend to discuss security issues with the country.

Indian officials discussed with Russian authorities on the issue of Dokkel during a recent meeting of the BRICS conference. Russia has tried to convince that China is stabilizing the status quo by building roads in Dokalam and which is dangerous for India's security which is dangerous.

The next one will be held on September 3/5 at the BRICS conference in China. There is a need to go to Prime Minister Narendra Modi. Meanwhile, the report of the US Congress Research Organization recently feared the direct war between India and China due to the conflict over the Dokle.

According to the US report, recent incidents seem to be starting a new chapter of conflict between the two countries. It is not only the 2,167-mile-long border between India and China, it will be printed across South Asia and Indian Ocean coastal areas.

According to an expert in the US Congress Research Agency, CRS, 'China has been under severe pressure on India on a number of issues. Beijing is trying to stop being a member of India's nuclear supplier group Besides, China-Pakistan economic corridors were built through Pakistan-occupied Kashmir, to protect a terrorist organization supported by the United Nations from the United Nations, China's strategic presence on the Indian Ocean coastal areas.


ডোকলাম ইস্যুতে চীনের সঙ্গে চরম উত্তেজনার মধ্যে এ বিষয়ে রাশিয়ার সমর্থন লাভের চেষ্টা চালাচ্ছে ভারত। বিকাশমান পাঁচটি অর্থনৈতিক শক্তিধর দেশ ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চীন ও দক্ষিণ আফ্রিকার সমন্বয়ে গঠিত সংস্থার ব্রিকসের আসন্ন সম্মেলনের আগেই নয়াদিল্লি ওই সমর্থন লাভের চেষ্টা করছে।
ভারতীয় কর্মকর্তাদের একটি সূত্র বলছে, দু’দেশের মধ্যে এ ব্যাপারে যোগাযোগ অব্যাহত রয়েছে। ডোকলাম ইস্যুতে ট্রাম্প প্রশাসনের স্পষ্ট অবস্থান প্রকাশ্যে না আসায় তা ভারতের জন্য ধাক্কা বলে মনে করা হচ্ছে। এরকম পরিস্থিতিতে ভারত রাশিয়ার সমর্থনের আশা করছে।
চীনকে ভারত বিরোধী মনোভাব ত্যাগ করানোর জন্য ভারত গত ৬ মাস ধরে মস্কোর সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছে। চলতি বছরে  পরমাণু সরবরাহকারী আন্তর্জাতিক গোষ্ঠী বা এনএসজি সদস্যপদ ইস্যুতে ভারত বিরোধিতা থেকে চীনকে বিরত রাখতে ভারত রশিয়ার দ্বারস্থ হয়েছিল।
নাম প্রকাশ করতে না চাওয়া এক কর্মকর্তা বলেন, রাশিয়া এক গুরুত্বপূর্ণ কৌশলগত অংশীদার সেজন্য একটি বন্ধু দেশের সঙ্গে নিরাপত্তা ইস্যুতে আলোচনা করা স্বাভাবিক ব্যাপার।
ব্রিকস সম্মেলন নিয়ে সম্প্রতি প্রস্তুতি বৈঠকের সময় ভারতীয় কর্মকর্তারা রাশিয়া কর্তৃপক্ষের সঙ্গে ডোকলাম ইস্যুতে আলোচনা করেছেন। রশিয়াকে এটা বোঝানোর চেষ্টা হয়েছে যে, ডোকলামে সড়ক তৈরির মাধ্যমে চীন স্থিতাবস্থা ভাঙছে এবং ভারতের নিরাপত্তার জন্য যা বিপজ্জনক।
আগামী ৩/৫ সেপ্টেম্বর চীনে ব্রিকস সম্মেলনে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। সেখানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির যাওয়ার কথা রয়েছে।এদিকে, সম্প্রতি মার্কিন কংগ্রেসের গবেষণা সংস্থার রিপোর্টে ডোকলাম নিয়ে সংঘাতের ফলে ভারত ও চীনের মধ্যে সরাসরি যুদ্ধের আশঙ্কা করা হয়েছে।  
মার্কিন রিপোর্টে বলা হয়েছে, সাম্প্রতিক ঘটনাপ্রবাহ দেখে মনে হচ্ছে দু’দেশের সংঘাতের নতুন অধ্যায় শুরু হতে যাচ্ছে। ভারত-চীনের ২১৬৭ মাইল দীর্ঘ সীমান্তই শুধু নয়, এর ছাপ পড়বে গোটা দক্ষিণ এশিয়া ও ভারত মহাসাগর তীরবর্তী অঞ্চলগুলোতে।’
মার্কিন কংগ্রেসের গবেষণা সংস্থা সিআরএস-এরএক বিশেষজ্ঞের মতে, ‘একের পর এক বিভিন্ন ইস্যুতে চীন ভারতকে রীতিমতো চাপের মুখে ফেলেছে। ভারতের পরমাণু সরবরাহকারী গোষ্ঠীর সদস্য হওয়া আটকানোর চেষ্টা করছে বেইজিং। এছাড়া পাক-অধিকৃত কাশ্মিরের মধ্য দিয়ে চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডর তৈরি, জাতিসংঘের হাত থেকে পাকিস্তানের সমর্থনপ্রাপ্ত একটি সন্ত্রাসবাদী সংগঠনকে রক্ষা করা, ভারত মহাসাগর তীরবর্তী অঞ্চলে চীনের কৌশলগত উপস্থিতি ইত্যাদি।

No comments