Header Ads

‘Forgive Me’, Says Ram Rahim As Court Sentences Him 20-Year Imprisonment স্বঘোষিত ধর্মগুরু রাম রহিমের ১০ বছর জেল


 

 During the final moments of the court hearings, under a special arrangement in Rohtak’s Sonaria Jail, convicted godman Gurmeet Ram Rahim Singh broke down, pleading for mercy.
Mujhe maaf kar do (please forgive me),” were the words uttered by Ram Rahim as Justice Jagdeep Singh ignored his last-minute leniency appeal and sentenced him 10 years of consecutive imprisonment, which sums up to 20-years behind the bars.
The quantum of punishment was announced by the CBI judge as per the Indian Penal Code sections 376 (rape), 506 (criminal intimidation) and 509 (insulting the modesty of a woman).
Ram Rahim wept for nearly ten minutes inside the makeshift courtroom, after the court awarded him the punishment, reports claimed.
During the course of the hearing, TV reports say, the rape convict cried innocence, reiterating before the judge that he is “being framed” in the case.
Security was beefed up across Haryana and Punjab ahead of the sentencing of Ram Rahim.
No major incident of violence was reported. However, two vehicles were burnt down in Sirsa, the home base of Ram Rahim.
AS Dhillon, IG Sirsa, while briefing the press, said situation would remain under control. “Please be assured that no guilty will be spared during violence probe,” he said.
The Dera headquarters in Sirsa, according to the IG, is still occupied by 1000 Ram Rahim devotees, whom the forces have urged to vacate the premises.
Curfew would continue to remain imposed in Sirsa, Rohtak, Panchkula and other parts of Haryana, where the Dera has presence. Internet services and SMS would be clamped down till Tuesday morning, 11:30 AM, to prevent galvanisation of Dera members for protest.
Army columns have been kept on standby, along with 28 units of Rapid Action Force. 20,000 security personnel are also stationed in Delhi, which saw nine incidents of arson on Friday, following Ram Rahim’s conviction.



ধর্ষণ মামলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়া ভারতের ‘ডেরা সাচ্চা সৌদা’ সংগঠনের প্রধান ও স্বঘোষিত ধর্মগুরু গুরমিত রাম রহিম সিংকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

আজ কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা সিবিআইয়ের পক্ষ থেকে গুরমিত রাম রহিম সিংয়ের অপরাধকে বিরলের মধ্যে বিরলতম ঘটনা বলে অভিহিত করে আদালতে সর্বোচ্চ সাজা দেয়ার দাবি জানানো হয়।

অন্যদিকে, আদালতে গুরমিতের আইনজীবী  গুরমিত রাম রহিমকে একজন সমাজসেবক ও তিনি জনগণের কল্যাণে কাজ করেন বলে দাবি করে তার কম সাজা দেয়ার দাবি জানান।

ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৬ ধারা (ধর্ষণ) ও ৫০৬ ধারায় (ভয় দেখিয়ে অপরাধ) এবং ৫১১ ধারায় দোষী সাব্যস্ত হন গুরমিত। আজ আদালতের রায় ঘোষণার পর হরিয়ানার পাশাপাশি পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে জরুরি বৈঠকে বসেন।

আজ সকালে পাঞ্জাব ও হরিয়ানার পরিস্থিতি নিয়ে দিল্লিতে বিশেষ বৈঠকে বসেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং, অজিত ডোভাল, স্বরাষ্ট্রসচিব ও গোয়েন্দা কর্মকর্তারা। আজ সকাল থেকেই পুলিশ ও সেনার যৌথবাহিনী হরিয়ানার বিভিন্ন এলাকায় ফ্ল্যাগ  মার্চ করছে।

সুনারিয়া কারাগারের আশেপাশে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ত্রিস্তরীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থায় ২৩ কোম্পানি আধাসামরিক বাহিনী মোতায়েন করা হয়।   

গত শুক্রবার ধর্ষণের মামলায় গুরমিত রাম রহিম সিংকে আদালত দোষী সাব্যস্ত করে। ওই ঘটনার জেরে তার সমর্থকরা যে সহিংস তাণ্ডব চালিয়েছিল, তাতে ৩৮ জন নিহত হয়।

গতকাল রোববার পর্যন্ত পুলিশ এ ব্যাপারে ৯২৬ জনকে গ্রেফতার করে। আজ সেই ঘটনার যাতে পুনরাবৃত্তি না ঘটে সেজন্য স্পর্শকাতর এলাকায় কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। নিরাপত্তা বাহিনীর পক্ষ থেকে সড়কে যানবাহন তল্লাশি চালানোসহ বিভিন্ন স্থানে অস্থায়ী বাঙ্কার নির্মাণ করা হয়।

No comments