Header Ads

নদের চর থেকে জেসিবি দিয়ে বেআইনী ভাবে মাটি কাটছে পুরসভা








কাউকে কিছু না জানিয়ে নদের চর থেকে দেদার বড় বড় জেসিবি মেসিন দিয়ে মাটি কেটে নিচ্ছে খোদ পুরসভা।  আর এই মাটি কাটার জেরে নদের চরে যারা চাষ আবাদ  করতেন তাদের জমি নষ্ট  হয়ে যাওয়ায় ব্যাপক ক্ষোভ দেখালেন এলাকার চাষিরা। রীতিমত তৃণমূলের পতাকা নিয়ে নদের চরেই দাঁড়িয়ে তারা পুরসভার বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভে ফেটে পড়েন।ঘটনা আরামবাগের পার আদ্রা এলাকার। বুধবার সকালে এই গ্রামের শতাধিক  চাষি এই বিক্ষোভ দেখান।
বৃহস্পতিবার তারা পুরসভার এই কাজে বাধা দেন। কিন্তু তাতেও তারা নদের চর থেকে বেমালুম মাটি কাটা চালিয়ে যায়।
আরামবাগের পার আদ্রা গ্রামের একেবারে পাশ দিয়ে বয়ে গেছে দ্বারকেশ্বর নদ। এমনিতেই বর্ষার সময়ে এই নদ থেকে বালি তোলা নিষিদ্ধ  ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন। কিন্তু তাতেও রাতের অন্ধকারে এই নদের এই গ্রাম থেকে দেদার বালি তুলে পাচার করারও অভিযোগ করেন গ্রামবাসিরা। তাতেও স্থানীয় তৃণমূল নেতাদের মদত রয়েছে বলে অভিযোগ গ্রাম বাসিদের।
জানাগেছে,আরামবাগের পার আগ্রা এলাকায় দ্বারকেশ্বর নদের চরে দীর্ঘদিন ধরে চাষাবাদ করে আসছেন এলাকার শতাধিক দরিদ্র পরিবার।এই চাষের ওপরেই তাদের বছরের অর্ধেকের বেশি সময়ের খোরাকি। কিন্তু আরামবাগ পুরসভা কাউকে কিছু না বলে গ্রীন সিটি প্রকল্পের উন্নয়নের জন্য এই স্থল থেকে ব্যাপক হারে মাটি কেটে নিয়ে চলে যাচ্ছে। এতে তাদের সমস্ত জমি চাষের ক্ষেত্রে একেবারে অযোগ্য হয়ে পড়ছে। এই মাটি কাটার ফলে তারা আর চাষবাস  করতে পারবেন না। তাই তারা পুরসভার এই অন্যায় কাজের প্রতিবাদ স্বরূপ নদের চরে দাঁড়িয়েই বিক্ষোভ দেখান।তাদের দাবি, আমরাও তো এখন তৃণমূল করি। আমরা বামেদের আমল থেকে এক ভাবে চাষ করে আসছি।এত দিন কেউ কিছুই বলেনি। কখনও কোন অসুবিধা হয়নি। অথচ পুরসভা তার শহরের উন্নয়নের নামে, তাকে সামনে রেখে আমাদের মত দরিদ্র চাষিদের পেটে লাথি মারছে।আমরা এই অন্যায় সহ্য করব না।
এই এলাকার বাসিন্দা তথা চাষি বেল ওয়ার খাঁ,লক্ষণ  হাঁসদা, লিয়াকত আলি খাঁ,জাফর আলি খাঁ, বাদল খাঁ,দিলবার আলি সহ একাধিক চাষির দাবি,অবিলম্বে এই মাটি কাটা বন্ধ করতে হবে।তানাহলে আমরা  নিজেরাই পুরসভার বিরুদ্ধে আন্দোলনে নেমে মাটি কাটা বন্ধ করে দেবো।আমাদের চাষের জমি থেকে মাটি কাটা চলবে না।
এই সমস্ত মানুষের বক্তব্য,  আমরা দীর্ঘদিন ধরে এই এলাকায় দ্বারকেশ্বর নদের চরে চাষবাস করে আসছি। এখন চাষ বাস বন্ধ হয়ে গেলে খাবো কি। কে আমাদের অন্ন সংস্থান করে দেবে।আমরা না খেতে পেয়ে মরে যাবো।পুরসভা এক প্রকার জোর করে এই মাটি কাটছে। আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ করছি।আমরা আমাদের অধিকার ছাড়বোনা।



No comments