Header Ads

মশাদের মাঝে রেখে চিকিৎসা




 মশাদের মাঝে রেখে চিকিৎসা

মশা বাহিত রোগের চিকিৎসা হচ্ছে মশাদের মাঝে রেখেই নরকের অবস্হায় ।  পূর্ব মেদিনীপুরের জেলা হাসপাতালে ডেঙ্গুতে আক্রান্তদের চিকিৎসা চলছে খোলা যায়গায় ।হাসপাতাল কর্মীদের যাতায়াতের পথে মেঝেতে ।বেহাল চিকিৎসার অবব্যবস্থা জেলা হাসপাতালে ।যে খানে মূখ্যমন্ত্রী বারে বরে বলছেন মেঝেতে যেন রুগিরা না থাকে।কিছুদিন আগে সাস্থ্যপ্রতিমন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য তমলুক হাসপাতালে এসে নির্দেশ দিয়ে গিয়েছিলেন কোনো রুগি যে মেঝেতে না থাকে। কিন্তু কে শোনে কার কথা নির্দেশ কাগজ কলমেই রয়েগেছে বাস্তবে রুপদেওয়ার কোনো আগ্রহ দেখা যাচ্ছেনা বা নজরে পড়ছেনা। পূর্ব মেদিনীপুরের সাথে সাথে পশ্চিম মেদিনীপুর থেকেও আসছে বহু রুগি তমলুক হাসপাতালে।



চুরিতে বাঁধা দিতে গিয়ে চোরেদের হাতে খুন 70 বছরের বৃদ্ধা


চুরিতে বাঁধা দিতে গিয়ে চোরেদের হাতে খুন 70 বছরের বৃদ্ধা।ঘটনায় ব্যাপক উত্তেজনা নদীয়ার বগুলায়।মৃত বৃদ্ধার নাম বিনাপানী বিশ্বাস।বুধবার গভীর রাতে ঘটনাটি ঘটেছে নদীয়ার হাসখালি থানার বগুলা কলেজ পাড়ায়।সূত্রের খবর,কলেজ পাড়ার বাসিন্দা বছর 70 এর বৃদ্ধা বিনাপানী বিশ্বাসের ছেলে বিপুল বিশ্বাস কর্মসূত্রে কলকাতায় থাকেন।বগুলায় বিনাপানী দেবী তার বৌমা ও ছোট নাতিকে নিয়ে একাই থাকতেন।অভিযোগ,বুধবার গভীর রাতে বেশ কয়েকজনের দুষ্কৃতী দল হানাদেয় বিনাপানী দেবীর বাড়ীতে।দুষ্কৃতীরা লুটপাট চালানোর সময় বিনাপানী দেবী বাঁধা দিলে তার মাথায় লোহার রড জাতীয় ভারী কিছু দিয়ে আঘাত করে দুষ্কৃতীরা।ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় বৃদ্ধার।এর পর দুষ্কৃতীরা লুটপাট চালিয়ে চম্পট দেয়।বৃদ্ধার পাশের ঘরেই তার ছোট শিশুকে নিয়ে ঘুমাচ্ছিলেন বৌমা।দরজা ভিতর থেকে বন্ধ থাকায় রেহাই পেয়েযান তিনি। বৃহস্পতিবার সকালে ঘুমথেকে উঠে শ্বাশুড়ীকে ডাকতে গেলে বিষয়টি সামনে আসে।পরে হাসখালি থানায় খবর দেওয়া হলে ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছায়।এই ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে।উত্তেজিত এলাকাবাসী পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার প্রতিবাদে ও দুষ্কৃতীদের গ্রেফতারের দাবিতে দীর্ঘক্ষণ বগুলা কৃষ্ণনগর পথ অবরোধ করে রাখে।এলাকাবাসীর অভিযোগ,দীর্ঘদিন ধরে একটি দুষ্কৃতী চক্র এলাকায় কোন বাড়িতে লোক কম থাকে,বা বেশির ভাগ সময় বাড়ী ফাঁকা থাকে তার খোঁজ চালাত।পুলিশ যদি তাদের কাজ ঠিক মতন কোরত তবে এই ধরণের ঘটনা এড়ানো যেত।ঘটনাস্থলে পৌঁছে তদন্ত শুরু করেছে হাসখালি থানার পুলিশ।

 TMCP-র গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব

 ফের আসানসোলে ছাত্র রাজনীতিতে  TMCP-র গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ছবি সামনে এল। ঘটনা আসানসোল বিবি কলেজ। জানা গিয়েছে আগামী ২৮ আগষ্ট তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে এদিন  আসানসোলের গুজরাটি ভবনে একটি প্রস্তুতি সভার আয়োজন করা হয়েছিল। সেই সভাতেই আসানসোল বিবি কলেজ থেকে ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে যাচ্ছিলেন কলেজের ছাত্র সংসদের জিএস সুশোভন মাজি। অভিযোগ সেই সময় কলেজের এজিএস দানিশ আজিজ তার অনুগামীদের নিয়ে গিয়ে ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে যেতে বাধা দেয়। প্রথমে বচসা, তারপর দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসানসোল দক্ষিন থানার পুলিশ পৌছায়।  কলেজের জিএস সুশোভন মাজির অভিযোগ,  এজিএস দানিশ আজিজ ও তার অনুগামীরা বেলচা, ইঁট দিয়ে আক্রমন করে সাধারণ ছাত্রছাত্রীদের উপর। এর ফলে কয়েকজন  জন ছাত্রছাত্রী আহত হয়েছেন বলে দাবি জিএস সুশোভন মাজির।
অন্যাদিকে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন এজিএস দানিশ আজিজ। তার পাল্টা  অভিযোগ বলপুর্বক ছাত্রছাত্রীদের ওই সভায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল।তারই প্রতিবাদ করেছেন।





পুলিশের জালে  নারী পাচারের অন্যতম পান্ডা আবিদ গাজী

অবশেষে পুলিশের জালে ধরা পড়ল,- নারী পাচারের অন্যতম পান্ডা আবিদ গাজী।মাত্র ১৮ বছরের এই যুবক মোবাইল ফোনে মেয়েদের সাথে প্রথমে প্রেমের এবং তারপর বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে বাড়ী থেকে বের করে চড়া দামে দালালদের কাছে বিক্রি করতো এই যুবক,ধৃত আবিদকে জেরা করে এমনই
চাঞ্চল্যকর তথ্য উদ্ধার করে
জয়নগর থানার পুলিশ।উল্লেখ্য,-সম্প্রতি জয়নগরএর নিমপীঠের দুই বোন নিখোঁজের অভিযোগ পেয়ে ফোনের সূত্র ধরে মহিষাদল থেকে তাদের উদ্ধার করার পর ,পুলিশ আবিদ সহ বেশ কয়েকজন নারী পাচারকারীর নাম পায়।তার পরই ফোনে বিশেষ টোপ দিয়ে আবিদ কে দক্ষিন বারশত থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ।তারপর
আবিদকে দফায় দফায় জেরা করে বেশ কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য উদ্ধার করে জয়নগর থানার পুলিশ।ধৃত আবিদকে আজ বারুইপুর আদালতে তোলা হবে।

No comments