Header Ads

নতুন বছরেই যে ভাবে সরতে পারেন বঙ্গ বিজেপির বর্তমান নেতৃত্ব




কলকাতা সফরে এসে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ বিজেপির রাজ্য নেতৃত্ব ও সাংগঠনিক নেতাদের পরিস্কার বার্তা দিয়েছেন, কাজ না করে পদ আকড়ে রাখার সময় এবছর। আগামি তিন মাসে নিজেদের প্রমাণ করতে হবে। যদিও বিজেপির কেন্দ্রীয় কমিটি বাংলার জন্য বিকল্প ভাবনা শুরু করেছে। 
এবারের কলকাতা সফরে অমিত শাহ কোনও খুশির খবর নিয়ে যেতে পারবেন না দিল্লির জন্য তা আগে থেকেই তিনি বুঝেছিলেন সংঘের গোপন রিপোর্ট দেখে। অমিত শাহ পরিস্কার বুঝে গেছেন চেয়ার আগলে রাখা আর দলবাজিতে পটু এই বিজেপির বাংলা ব্রিগেডদের দিয়ে কিচ্ছুটি হবে না।
সুত্রের দাবি,অমিত সহ বিজেপির একাধিক নেতা কর্মীদের বিজেপিতে যোগ দিতে ইচ্ছুক কংগ্রেস ও তৃণমূল কংগ্রেস নেতাদের তরফে ইতিমধ্যেই বোঝানো হয়েছে যে, এই বঙ্গ বিজেপির নেতাদের দিয়ে জন নেতা ও ভোট মেশিনারী তৈরি করা সম্ভব নয়। কদিন আগে  ক্ষয়িষ্ণু বামেরা বারাসত সহ বিভিন্ন যায়গায় ডেপুটেশনের নামে  যে অস্হির পরিবেশ তৈরি করেছে তা বিজেপিকে দিয়ে সম্ভব নয় দিল্লির নেতাদের এও বোঝানো হয়েছে।  বিজেপির বঙ্গ নেতারা মণ্ডলের লবি কোন্দল সামলাতে ব্যর্থ তাদের দিয়ে কি হবে। বরং ব্যাটন তুলে দিলে কংগ্রেস ও তৃণমূল কংগ্রেস থেকে আসা বড়ো নেতারা তাদের অনুগামীদের দিয়ে সংগঠন মজবুত করে ভোটে জিতিয়ে দিতে পারবে বিজেপিকে। সেক্ষেত্রে ওই নেতারা পঞ্চায়েত দিয়ে নিজেদের ক্ষমতা প্রমাণ করবে। পাশাপাশি পদে থাকা বিজেপি নেতারাও পঞ্চায়েত ভোট করবেন অতীতের মত। আর এখানেই বিজেপিতে যোগ দিতে ইচ্ছুকরা টেক্কা দিয়ে বঙ্গ বিজেপির বর্তমান নেতাদের থেকে ছিনিয়ে নেবে ব্যাটন। 

No comments