Header Ads

রোহিঙ্গাদের আশ্রয় না দিয়ে ফিরিয়ে দেয়া নিন্দনীয়: ভারতের প্রতি জাতিসংঘ

 জেইদ রা’দ আল হুসেইন



রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারের পাশাপাশি ভারতের ভূমিকার কঠোর সমালোচনা করেছেন জাতিসংঘের মানবাধিকার সংক্রান্ত হাইকমিশনার জেইদ রা’দ আল হুসেইন। তিনি মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে সহিংসতা ও অবিচারকে ‘জাতি নির্মূলকরণের আদর্শ উদাহরণ’ বলে মন্তব্য করেছেন।  
ভারত সরকার সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন রাজ্যে ছড়িয়ে থাকা ৪০ হাজার রোহিঙ্গা শরণার্থীকে মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর জন্য পদক্ষেপ নিয়েছে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে সম্প্রতি এ ব্যাপারে বিশেষ নির্দেশিকা বিভিন্ন রাজ্যে পাঠানো হয়েছে। স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী কিরেন রিজিজুও এ ব্যাপারে কঠোর মনোভাব ব্যক্ত করে ‘রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো হবেই বলে মন্তব্য করেছেন।
র প্রতিক্রিয়ায় জেইদ রাদ আল হুসেইন বলেন, নিজের দেশে যারা অত্যাচারের শিকার, তাদের আশ্রয় না দিয়ে ফিরিয়ে দেয়া নিন্দাজনক।


 



তিনি বলেন, ‘মিয়ানমারে যখন তাদের দেশে তারা জুলুমের শিকার হচ্ছেন, এ সময় রোহিঙ্গা মুসলিমদের তাদের দেশে ফেরত পাঠানোর জন্য ভারতের পক্ষ থেকে নেয়া পদক্ষেপের কঠোর নিন্দা করছি।  
কিরেন রিজিজুকে উদ্দেশ করে জেইদ রাদ আল হুসেইন বলেন, ভারতের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেছেন জাতিসংঘের শরণার্থী কনভেনশনে ভারতের সই নেই। কিন্তু সেজন্য একদল মানুষকে পুনরায় বিপদের মুখে ঠেলে দেয়া যায় না। এ ক্ষেত্রে মানবিকতার খাতিরেও ভারত শরণার্থী ফেরত পাঠাতে পারে না।
তার মতে, ভারত এ ব্যাপারে সার্বজনীন মূলনীতি মেনে চলতে বাধ্য। ভারত শরণার্থীদের গণনির্বাসন অথবা শরণার্থীদের এমন জায়গায় ফেরত পাঠাতে পারে না যেখানে তাদের বিরুদ্ধে অত্যাচার ও গুরুতর হয়রানি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।
তিনি ভারতে ধর্মীয় ও অন্য সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে অসহিষ্ণুতার পরিবেশ নিয়েও হতাশা ব্যক্ত করেছেন।
আল হুসেইন বলেন, সহিংসতার বর্তমান পর্যায়ে যা প্রায়ই প্রাণঘাতী ও গরু রক্ষার নামে মানুষের পরে গণ-আক্রমণের ঘটনা বিপজ্জনক বিষয়। মৌলিক মানবাধিকারের সঙ্গে সহযোগিতা করা লোকদের হুমকি দেয়া হচ্ছে। সাম্প্রদায়িকতা ও বিদ্বেষের ধংসাত্মক প্রভাব সম্পর্কে একনাগাড়ে সোচ্চার হওয়া সাংবাদিক গৌরি লঙ্কেশকে গত সপ্তাহেই হত্যা করা হয়েছে।
ভারতে সবচেয়ে অবহেলিত অংশের অধিকার রক্ষার জন্য যারা সোচ্চার তাদেরকে ভারতে এক শক্তিশালী ও সমন্বিত সমাজ প্রতিষ্ঠার অংশীদার হিসেবে গণ্য করা উচিত বলেও আল হুসেইন মন্তব্য করেছেন।



No comments