Header Ads

রদবদলের মুখে বিজেপির রাজ্য নেতৃত্ব BJP's state leadership in the face of reversal







রদবদলের মুখে বিজেপির রাজ্য নেতৃত্ব

ফের রদবদলের মুখে বিজেপির রাজ্য নেতৃত্ব । বদল হতে পারে বিজেপির রাজ্য সভাপতির পদও। পুজোর পরপরই এই বদলের সম্ভাবনা প্রবল। এমন দাবি বিজেপির নির্ভরযোগ্য সুত্রের।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সুত্রটি জানিয়েছে, পুজোর পর পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতিতে বড়সড় অঘটন ঘটতে চলেছে। শাসকের ঘরে বাঁধতে চলেছে অশান্তি। কারণ, নারদ তৃণমূলেরই রাজ্য সভার সাংসদ কেডি সিং এর তৈরি। ফলে সারদার আত্মসাৎ প্রকাশ্যে না এলেও নারদ প্রমান করে দিয়েছে সারদা র অপ্রকাশিত ছবি। যা জনগন বিশ্বাস করতে শুরু করেছে।
তৃণমূলের দলটা এখন আড়াআড়ি বিভক্ত। যা এখনও প্রকাশ্যে না এলেও এই ভাগের ছায়া ধরে ফেলেছে বিজেপি।
বিজেপির সুত্রের দাবি, সিপিএম সদস্যরা তৃণমূলের জামা পরে লড়াই করে দল তৈরি করে আসা তৃণমূলকে দলে কোনঠাসা করে রেখেছে তারা। পাশাপাশি এক পেশে করে কম্মে খাওয়াদের দাপটে দলের একাংশ ক্ষুব্ধ মত বিরোধ আর না পাওয়ার ফলে। এই অবস্থায় এই স্বচ্ছ অংশই এখন অপেক্ষা করছে বিজেপিতে আসা। কারণ, রাজ্য বিজেপিতে সাংগঠনিক নেতার অভাব। অথচ, বিজেপির ভোট বাক্সের জন্য তৈরি হয়েছে ভোটাররা। বিজেপির নেতা পেলেই শাসকের নিশ্বাস ফেলতে শুরু করবে গেরুয়া শিবির।

ঠিক কি কারণে রাজ্য সভাপতি সহ বেশ কিছু পদে বদল হবে সেই ব্যাখ্যা গোপন করে সুত্রের দাবি, সারদা ও নারদ মামলার গতি পেলেই অনেক কিছু ঘটবে রাজ্যে। তারওপর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এই রাজ্য থেকে লোকসভা আসনে ভোটে লড়তে পারেন। ফলে রাজ্যসভাপতির পদে এমন কাউকে বসানো হবে যিনি জেলার সাংগঠনিক সমস্যা মিটিয়ে রাশ নিজের হাতে তুলে নিতে পারবেন। দাবি,  দিলীপ ঘোষকে কাজ করতে বিরোধী শিবিরের প্রবল বাঁধার মুখে পড়তে হচ্ছে। যা সমাধান করতে চাইলেও নানা প্রতিবন্ধকতার কারনে দিলীপ বাবু পারছেন না।

No comments