Header Ads

Police abducted the hostage in Basanti দেখুন পুলিশ পিটিয়ে আসামি ছিনতাই





Police abducted the hostage in Basanti



Basanti: The tension spread over the police attack in Basanti of South 24 Parganas. Not only the attack, the villagers hijacked the accused, who were beaten with a rape. The villagers have been injured in the killing of more than a dozen policemen. Apart from the crime, three vehicles of the police have also been vandalized. The injured policeman was admitted to the Basanti Block Rural Hospital for treatment.


A couple of months ago, Basanti's instructions in the clash between the two groups of grassroots people died in a clash between a group of grassroots activists named Mujibur Rahman. The local Phulmalanch village panchayat member Zakir Shekhar I was arrested on Monday noon. Police arrested Basanti Police Station OC Ardhendu Shekhar De Sarkar and CI Canning Ratan Chakravarty for arresting the unprotected Zakir Sheikh. Bahini Bassini Thana Khirisatalagrame. The police rushed to the house of Akkaka Zakir Khan and attacked him. In front of the villagers, the grassroots leaders were beaten up and complained that many villagers of the village and women from Achamkabari went out of the police station. Police beat up three vehicles of the police, and took three villagers from the villagers to the village panchayat member Zakir Sekh. Actually, the police survived from the area to save the villagers from the attack. A total of eleven police personnel were injured in the incident. After this incident, around 4:30 pm on Monday afternoon the huge police force entered the area. Go home and search the house. On the other hand, almost everyone fled from the village fearing police. There is no male man at the moment in the village, there is an atmosphere in the atmosphere.


পুলিশ পিটিয়ে আসামী ছিনতাই বাসন্তীতে



বাসন্তী :  পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় ফের উত্তেজনা ছড়ালো দক্ষিণ ২৪ পরগণার বাসন্তীতে।শুধু হামলা নয় কার্যতপুলিশ পিটিয়ে আসামি ছিনতাই করলো গ্রামবাসিরা। গ্রামবাসীদের মারে আহত হয়েছেনএগারোজন পুলিশ কর্মী।মারধরের পাশাপাশিভাঙচুর করা হয়েছে পুলিশের তিনটে গাড়িও। ঘটনায় আহত পুলিসকর্মীদের বাসন্তী ব্লক গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে চিকিৎসার জন্য।


সপ্তাহখানেক আগে বাসন্তীর নির্দেশখালিতে তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে মৃত্যু হয়েছিল মুজিবর মল্লিক নামে এক যুব তৃণমূল কর্মীরI সেই খুনের ঘটনায় নাম জড়িয়েছিল স্থানীয় ফুলমালঞ্চ গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য জাকির শেখেরIসোমবার দুপুর নাগাদঅভিযুক্ত জাকির সেখকে গ্রেফতারের জন্য বাসন্তী থানার ওসি অর্ধেন্দু শেখর দে সরকার ও সি আই ক্যানিং রতন চক্রবর্তীর নেতৃত্বে পুলিশ বাহিনী যায়বাসন্তী থানার  খিরিসতলাগ্রামে। সেখানে গিয়ে আচমকা জাকির সেখের বাড়িতে হানা দিয়ে তাকেগ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রামবাসীদের সামনেই চলেএই তৃণমূল নেতাকেবেধড়ক মারধরI  অভিযোগ সেই সময় প্রচুর গ্রামবাসীমহিলা ও পুরুষ আচমকাবাড়ি থেকে বেড়িয়ে এসেহামলা চালায় পুলিশের উপর।  পুলিশ পিটিয়ে,পুলিশের তিন তিনটি গাড়িভাঙচুর করে গ্রামবাসীরাইছিনিয়ে নিয়ে যায় ধৃত পঞ্চায়েত সদস্য জাকির সেখকেI কার্যত গ্রামবাসীদের হামলার হাত থেকে বাঁচতে এলাকা থেকেপালিয়ে বাঁচে পুলিশ।ঘটনায় মোট এগারোজন পুলিশ কর্মী আহত হয়েছেন।  এই ঘটনার পর সোমবার বিকেল সাড়ে চারটে নাগাদ আবার বিশাল পুলিশ বাহিনী ঢোকে এলাকায়। চলে বাড়ি বাড়ি গিয়ে তল্লাশি। অন্যদিকে পুলিশের ভয়ে গ্রাম ছেড়ে পালিয়েছেন প্রায় সকলেই। গ্রামে এই মুহূর্তে কোন পুরুষ মানুষ নেই বললেই চলে, চারিদিকে একটা থমথমে পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে। 

No comments