Header Ads

ছাত্রীর ক্ষতবিক্ষত মৃতদেহ উদ্ধার




দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্রীর ক্ষতবিক্ষত মৃতদেহ উদ্ধারকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল এলাকাজুড়ে। শনিবার বিকেল থেকে নিখোঁজ থাকার পর রবিবার সকালে বাড়ির পাশে মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখা যায় বছর সাতেকের সফিয়া খাতুনের। কে বা কারা, কী কারণে তাকে অপহরণ করে খুন করে- বিষয়টি এখনো রয়েছে ধোঁয়াশায়। মুর্শিদাবাদে ডোমকলের বর্তনাবাদ এলাকার এই ঘটনায় তদন্ত শুরু করেছে ডোমকল থানার পুলিশ।
স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে এদিন সকালে তার নিজের বাড়ির পাশ থেকে লতাপাতা ঢাকা অবস্থায় মৃতদেহ উদ্ধার হয় সফিয়া খাতুন নামে দ্বিতীয় শ্রেণীর ওই ছাত্রীর। সফিয়ার শরীরে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন দেখে স্থানীয়দের অনুমান- কেউ বা কারা তাকে অপহরণের পর খুন করে রাতের অন্ধকারে বাড়ির পাশে ফেলে গিয়েছে।
পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে- শনিবার বিকেল নাগাদ বাড়ি থেকে খেলতে বেড়ানোর পর আর সারা রাত তার কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। এরপর রবিবার সকালে সফিয়ার রক্তাক্ত মৃতদেহ লতাপাতা ঢাকা অবস্থায় বাড়ির পাশে পড়ে থাকতে দেখা যায়। পুরানো শত্রুতার জেরে এই নৃশংস খুন বলে পরিবারের লোকজনদের অনুমান। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ, মৃতদেহ পাঠানো হয় ময়না তদন্তের জন্য। উল্লেখ্য - গত মাস চারেক আগে শাশুড়িকে খুনের অভিযোগে ১৪ বছর সাজাপ্রাপ্ত হয় সফিয়ার মা সারবানু বিবি। তারই জেরে এই খুন বলে পুলিশের কাছে সন্দেহ প্রকাশ করে পরিবারের লোকজন। অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ডোমকল থানার পুলিশ।

No comments